সীমান্তে হত্যা বন্ধে বাংলাদেশ-ভারত সরকার কাজ করছে

বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাই কমিশনার বিক্রম কুমার দোরাইস্বামী বলেছেন, সীমান্তে হত্যা যাতে শূন্যে আনা যায় এ বিষয়ে বাংলাদেশ-ভারত কাজ করছে।

বিএসএফ-বিজিবি সীমান্ত রক্ষায় সচেষ্ট রয়েছে। ভারতীয় সেনাদের বিনা কারণে হত্যা না করতে নির্দেশনা দেওয়া রয়েছে। চোরাচালান ও অনুপ্রবেশ বন্ধে সীমান্ত সেনারা কাজ করে যাচ্ছে। বিজিবি-বিএসএফকে যৌথভাবে মাদক চোরাচালান বন্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার বিষয়ে একমত হয়েছি। আশা করা হচ্ছে, আমরা ভালো ফল পাবো।

মঙ্গলবার (১৬ নভেম্বর) দুপুরে পৃথকভাবে ভারতীয় হাইকমিশনের অর্থায়নে নির্মিত রংপুর নগরীর মাহিগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের নব নির্মিত একাডেমিক ভবনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ও রংপুর সিটি কর্পোরেশনকে দেয়া উপহার স্বরুপ লাইফ সাপোর্ট সংবলিত অত্যাধুনিক অ্যাম্বুলেন্স হস্তান্তর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ভারতীয় হাইকমিশনার এসব কথা বলেন।

হাইকমিশনার বলেন, ‘মাদক চোরাচালান দুই দেশের সমস্যা। বিশেষ করে ইয়াবা ও আইসের মতো ভয়ানক মাদক চোলাচালান বন্ধে দুই দেশের মধ্যে আলোচনা চলছে। এটা যেকোনও মূল্যে বন্ধ করতে হবে। তিস্তা নদীর বিষয়ে তিনি বলেন, বিষয়টি নিয়ে ভারত সরকার খুবই আন্তরিক। এ সমস্যা সমাধানে আমরা কাজ করছি। তিস্তাসহ অভিন্ন সকল নদীর পানির সমবন্টন ও টেকসই সমাধানে যেকোনো সময় আলোচনায় বসতে ভারত সরকার প্রস্তুত।

এসময় বিক্রম কুমার দোরাইস্বামী আরো বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়ন অগ্রগতির চালক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার বিচক্ষণ নেতৃত্বে এদেশ উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় সব সেক্টরে এগিয়ে যাচ্ছে।

মঙ্গলবার দুপুরে রংপুর নগরীর মাহিগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের নব নির্মিত একাডেমিক ভবন উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে গর্ভনিং বডির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা রামকৃষ্ণ সোমানীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির হিসেবে বক্তব্য রাখেন, ভারতীয় সহকারী হাই কমিশনার (রাজশাহী) সঞ্জিব কুমার ভাট্টি, রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, মাহিগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের অধ্যক্ষ জাহানারা বেগম প্রমুখ। এসময় গর্ভনিং বডির সদস্যবৃন্দ, শিক্ষক-শিক্ষিকা, অভিভাবক, শিক্ষার্থী ও স্থানীয় গণমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে ভারতীয় হাইকমিশনার রংপুর সিটি কর্পোরেশনে ভারত সরকারের পক্ষ থেকে উপহার স্বরুপ দেয়া এ্যাম্বুলেন্স হস্তান্তর ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন। সেখানে রংপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার (রাজশাহী) সঞ্জিব কুমার ভাট্টি, রংপুর সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিন মিঞা, প্যানেল মেয়র মাহমুদুর রহমান টিটু প্রমুখ। এসময় ভারতীয় হাইকমিশনার রংপুর সিটি কর্পোরেশনের বিভিন্ন উন্নমূলক কর্মকান্ড পরিদর্শন করেন। পরে বিকেলে রংপুর চেম্বার মিলনায়তনে ব্যবসায়ীদের সাথে মতবিনিময় সভায় অংশ নেন।

এছাড়াও সোমবার সন্ধ্যায় রংপুরের ঐতিহ্যবাহি সিঙ্গারা হাউজ পরিদর্শন করে নগরী গ্র্যান্ড প্যালেস হোটেলে নৈশ্যভোজে যোগ দেন। সেখানে সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, জেলা প্রশাসক আসিব আহসান, রংপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি মাহবুব রহমান হাবুসহ সরকারি-বেসরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা, আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ, সুধীজন ও হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *