তুরস্কের ইস্তাম্বুলে ক্রিকেট টুর্নামেন্টে রানার্স-আপ বাংলাদেশ

তুরস্কের ইস্তাম্বুলে ক্রিকেট টুর্নামেন্টে রানার্স-আপ বাংলাদেশ

0
SHARE

আল আমিন,ইস্তাম্বুল থেকেঃ

তুরস্কের ইস্তাম্বুলে আয়োজিত ক্রিকেট টুর্নামেন্টে দ্বিতীয় রানার্স-আপ হলো বাংলাদেশ একাদশ। ইস্তাম্বুল ক্রিকেট ক্লাবের আয়োজনে আয়োজিত স্বল্প ওভারের ক্রিকেট টুর্ণামেন্টে সেমি ফাইনালে ‘ইস্তাম্বুল ক্রিকেট একাদশ’এর কাছে হেরে তৃতীয় হয় বাংলাদেশ একাদশ।

শুত্রুবার ( ৩০ আগস্ট) তুরস্কের বিজয় দিবস উপলক্ষে তিনদিনব্যাপি স্বল্প ওভারের ক্রিকেট টুর্নামেন্টে মারমারা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত ফয়সাল আলম এর নেতৃত্বে ইস্তাম্বুলের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের নিয়ে গঠিত দল নিয়ে অংশ নেয় বাংলাদেশ দল। টুর্নামেন্টটি অনুষ্ঠিত হয় ইস্তাম্বুলের নামিক শেভিক স্টেডিয়ামে।2

প্রথম ম্যাচে মাত্র চার রানে হেরে টুর্নামেন্ট শুরু করলেও পরবর্তী ম্যাচে পাকিস্তানকে ১৪ রানের বিশাল ব্যবধানে হারায় বাংলাদেশ একাদশ। পুরো টুর্নামেন্ট জুড়ে ভালো খেলে শেষ ম্যাচে বড় লক্ষ্য দাড় করেও ‘ইস্তাম্বুল ক্রিকেট একাদশ’ এর কাছে হেরে গিয়ে তৃতীয় হয় বাংলাদেশ একাদশ।

টসে জিত ব্যাট করতে নেমে দুই ওপেনার শাকিল ও রইস সাবধানে শুরু করলেও ৫ ওভারে দলীয় ৩৪ রানে প্রথম উইকেট হারায় বাংলাদেশ একাদশ। এরপর ওয়ান ডাউনে নামা আল আমিন এর সাথে জুটি গড়ে ইকনোমি-রেট বাড়াতে থাকে সাকিল।

আল আমিন এর ৫ ছক্কার সাহায্যে করা ৩৩ রানের ঝড়ো ইনিংসের মাধ্যমে ১০ ওভার শেষে ‘বাংলাদেশ একাদশ’ এর সংগ্রহ দাঁড়ায় ৬ উইকেটে ১০৩ রান। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ইস্তাম্বুল ক্রিকেট একাদশ ৫ বল হাতে রেখেই ম্যাচ জিতে যায়।3

টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হয় ‘ইস্তাম্বুল ক্রিকেট একাদশ’ এবং প্লেয়ার অফ দ্যা টুর্নামেন্ট নির্বাচিত হন ‘বাংলাদেশ একাদশ’ এর রইস। ‘বাংলাদেশ একাদশ’ দলঃ ফয়সাল আলম(C)(মারমারা বিশ্ববিদ্যালয়), আল আমিন (মারমারা বিশ্ববিদ্যালয়), ফয়সাল চৌধুরি জুবায়ের (মারমারা বিশ্ববিদ্যালয়), নুরুল আবছার শাকিল(আলতিনবাস বিশ্ববিদ্যালয়), নাঈম ইসলাম(ইস্তাম্বুল কমার্স বিশ্ববিদ্যালয়), সায়েদ মাগফুর আহমেদ(ইস্তাম্বুল বিশ্ববিদ্যালয়), রইস (ইস্তাম্বুল বিশ্ববিদ্যালয়), জনি(ইস্তাম্বুল তিজারেত বিশ্ববিদ্যালয়), শেখ নাজমুল হুদা(ইস্তাম্বুল বিশ্ববিদ্যালয়), আব্দুর রাজ্জাক (আলতিনবাস বিশ্ববিদ্যালয়), আব্দুল্লাহ আল মামুন(মারমারা বিশ্ববিদ্যালয়), ওয়াসিফ জেহান( ইস্তাম্বুল যাইম বিশ্ববিদ্যালয়)।

print