মঙ্গলবার   ১৬ আগস্ট ২০২২   শ্রাবণ ৩১ ১৪২৯   ১৭ মুহররম ১৪৪৪

চাঁদ দেখা যায়নি, সৌদিতে ঈদ সোমবার

প্রকাশিত : ১০:৫০ পিএম, ৩০ এপ্রিল ২০২২ শনিবার

সৌদি আরবে শনিবার (৩০ এপ্রিল) পবিত্র শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা যায়নি। এবার দেশটিতে পবিত্র রমজান মাসের ৩০ দিন পূর্ণ হচ্ছে। ফলে সৌদিতে ঈদুল ফিতর উদযাপন করা হবে আগামী সোমবার (২ মে)।

মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম গালফ নিউজ জানিয়েছে, শনিবার (৩০ এপ্রিল) সৌদি আরবের ‘চাঁদ দেখা কমিটি’-এর পূর্বনির্ধারিত বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। আগেই দেশটির নাগরিকরা কোথাও ঈদের চাঁদ দেখতে পেলে সেই তথ্য কমিটিকে জানানোর অনুরোধ করা হয়েছিল।


তবে শনিবার সৌদি আরবের কোথাও শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখার খবর পাওয়া যায়নি। ফলে রোববার ৩০ রোজা পূরণ করে আগামী সোমবার অনুষ্ঠিত হবে পবিত্র ঈদুল ফিতর।

সৌদির সঙ্গে মিল রেখে একই দিন ঈদ উদযাপন করে সংযুক্ত আরব আমিরাতসহ উপসাগরীয় দেশগুলো। তবে তাৎক্ষণিকভাবে এসব দেশের পক্ষ আনুষ্ঠানিক ঘোষণা পাওয়া যায়নি। আবুধাবির ইন্টারন্যাশনাল অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল সেন্টার (আইএসি) আগেই জানিয়েছিল, মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে শনিবার (৩০ এপ্রিল) পবিত্র শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখতে পাওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই।

সৌদির আগে ঈদের দিনক্ষণ ঘোষণা করেছে অস্ট্রেলিয়া ও সিঙ্গাপুর। এই দুটি দেশেও আগামী সোমবার (২ মে) ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে।

ঈদুল ফিতর উপলক্ষে একটি বিবৃতিতে দিয়েছে অস্ট্রেলিয়ার ন্যাশনাল ইমাম কাউন্সিল। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, দেশটিতে রমজানের মাসের শেষ দিন হবে আগামী রোববার (১ মে) এবং শাওয়াল মাসের প্রথম দিন, অর্থাৎ ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে আগামী সোমবার (২ মে)।


এছাড়া, এশিয়ার মধ্যে সবার আগে ঈদুল ফিতরের দিন ঘোষণা করেছে সিঙ্গাপুর। দেশটির মজলিস উগামা ইসলাম বা ইসলামী ধর্মীয় পরিষদ (এমইউআইএস) জানিয়েছে, তারা আগামী সোমবার ঈদ উদযাপন করবে।

ইউরোপের দেশ ফ্রান্সেও সোমবার ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে।

সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যে পবিত্র রমজান বা শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেলো কি না তা নিয়ে বাংলাদেশের মানুষের আগ্রহের অন্ত নেই। মাস দুটোর শুরু চাঁদ দেখার ওপর নির্ভরশীল হলেও মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে সাধারণত যেদিন রোজা শুরু বা শেষ হয়, বাংলাদেশে হয় তার পরের দিন। ফলে শনিবার ওইসব দেশে চাঁদ দেখা গেলো কি না তা জানতে অধীর হয়ে রয়েছেন বহু মানুষ।

সৌদি আরবে এ বছর রোজা পালন শুরু হয়েছিল গত ২ এপ্রিল। আর তার পরের দিন, অর্থাৎ ৩ এপ্রিল থেকে রোজা শুরু হয়েছিল বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়াসহ এশিয়ার বেশিরভাগ দেশে। এসব দেশে ২৯ রোজা হলে সোমবার (২ মে) এবং ৩০ রোজা হলে মঙ্গলবার (৩ মে) ঈদুল ফিতর উদযাপিত হতে পারে।