ব্রেকিং:
ঘন কুয়া ও শৈত্য প্রবাহে লালমনিরহাটের জনজীবন স্থবির নেই ঢাকায় আসছে মেসির আর্জেন্টিনা

বুধবার   ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩   মাঘ ২৫ ১৪২৯   ১৬ রজব ১৪৪৪

সর্বশেষ:
পাটগ্রামে বীর মুক্তিযোদ্ধা হত্যাকাণ্ডে অভিযুক্ত আসামী পলাতক সরকারি খরচে সাত বছরে হজে গেছেন ১৯১৮ জন বিশ্ব ইজতেমায় লাখো মুসল্লির জুমার নামাজ আদায় শীত আরও বাড়তে পারে বিয়েবাড়িতে চাঁদাবাজি: তৃতীয় লিঙ্গের চারজন কারাগারে
২৭৭

না ফেরার দেশে কালিগঞ্জের সাংবাদিক ফারুক

প্রকাশিত: ৫ ডিসেম্বর ২০২২  

এশিয়ান টিভি ও দৈনিক  আলোকিত বাংলাদেশ পত্রিকার কালিগঞ্জ প্রতিনিধি, কাকিনা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড সংসদের কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আলতাফ হোসেনের দ্বিতীয় পুত্র তরুণ সংগঠক ও সমাজকর্মী ফারুক হোসেন আর নেই। ( ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)

 

রবিবার ( ৪ ডিসেম্বর) বেলা ১১ টা ৩০ মিনিটি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৪০ বছর। আজ রাত সাড়ে ৮টায় কাকিনা মহিমা রঞ্জন উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মরহুমের জানাজা অনুষ্ঠিত হবে । 

 

সাংবাদিক ফারুকের সহকর্মী সাজু মিয়া জানান, রবিবার সকাল ১০ টায় কাকিনার শিশু নিকেতন স্কুলে দুই পুত্রকে আনতে গিয়ে হঠাৎ বুকে ব্যথায় অসুস্থ হয়ে পড়েন। সেখান থেকে তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনারী কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) ভর্তি করানো হয়।
সেখানেই  চিকিৎসাধীন অবস্থায় বেলা ১১ টা ৪০ মিনিটে তিনি মারা যান।

 

তিনি এক কন্যা এবং দুই পুত্র সন্তানের জনক। মৃত্যুকালে সাংবাদিক সহকর্মী রাজনৈতিক সহকর্মী ছাড়াও অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেলেন তিনি। বাংলাদেশ প্রেসক্লাব কালীগঞ্জ উপজেলা শাখার উপদেষ্টা ও কালিগঞ্জ উপজেলা প্রেসক্লাবের ক্রীড়া সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক  সম্পাদক ছিলেন হয়তো সাংস্কৃতি সম্পাদক ফারুক হোসেন। 

সাংবাদিকতার পাশাপাশি সক্রিয় ছিলেন রাজনীতিতে। কাকিনা ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন। রাজনীতি করতে গিয়ে একাধিকবার একাধিকবার কারাবরণ করেছিলেন তিনি। ছাত্রলীগের কাকিনা ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ছিলেন ফারুক হোসেন। সাংবাদিকতা এবং রাজনীতির পাশাপাশি তিনি একজন ভালো ফুটবলার খেলোয়াড়ও ছিলেন। তিনি ছিলেন একজন সমাজ সেবী এবং শিক্ষাবিদ। কাকিনা মহিমা রঞ্জন স্মৃতি উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিচালনা পরিষদের সদস্য ছিলেন তিনি। রাজনীতির পাশাপাশি তিনি ব্যবসায়ী ব্যবসা পরিচালনা করতেন। কত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে কাকিনা ইউনিয়ন পরিষদ থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন তিনি।

কালীগঞ্জের সকল মহলের কাছে সাহসী ভদ্র এবং বিনয়ী সাংবাদিক ও রাজনীতিবিদ হিসেবে তার পরিচিতি ছিল সমাদৃত। তার মৃত্যুতে শোকে ভাসছে  লালমনিরহাটের বিভিন্ন সামাজিক, রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক ও সাংবাদিক সংগঠন। তার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন বিভিন্ন সংগঠনের নেতারা। তাকে হারিয়ে স্তব্ধ তার পরিবার এবং সাংবাদিক সমাজ। তার এই অকাল মৃত্যু মানতে পারছে না কেউই। 

 

ফারুকের মৃত্যুতে গভীর শোক ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছে, লালমনিরহাট প্রেসক্লাব, কালীগঞ্জ প্রেসক্লাব, রংপুর রিপোর্টার্স ক্লাব, রংপুর সাংবাদিক ইউনিয়ন, উপজেলা আওয়ামীলীগ, উপজেলা যুবলীগ। উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, জেলা পরিষদ সদস্য (কালীগঞ্জ উপজেলা), উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

এই বিভাগের আরো খবর