শুক্রবার   ০১ জুলাই ২০২২   আষাঢ় ১৬ ১৪২৯   ০১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩

সর্বশেষ:
উঁকি দিয়েছে চাঁদ, ঈদুল আজহা ১০ জুলাই তিস্তা ও ধরলার পানি কমলেও বেড়েছে দুর্ভোগ তিস্তা ও সানিয়াজান নদীর পানি বৃদ্ধি,৩ হাজার পরিবার পানিবন্দি বিপৎসীমার ওপরে ধরলা-দুধকুমারের পানি সৌদি আরবে ঈদুল আজহা ৯ জুলাই চাকরির একমাত্র বিকল্প শিক্ষিত বেকারদের উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে তোলা
৩২৬

রংপুরে ৮ হাজার লিটার সয়াবি তেল জব্দ

প্রকাশিত: ৯ মে ২০২২  

রংপুরে সয়াবিন তেলের কৃত্রিম সংকট রোধ ও সরবরাহ করতে অভিযান পরিচালনা করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। এ সময় তিনটি গোডাউনে মজুত ৮ হাজার লিটার তেল জব্দ করা হয়।

পরে তা বাজারে ন্যায্যমূল্যে বিক্রির ব্যবস্থা করে সংস্থাটি। একই সঙ্গে বেশ কয়েকটি গোডাউন মালিককে সতর্কসহ জরিমানাও করা হয়েছে।

রোববার (৮ মে) সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত নগরীর সাতমাথা, মাহিগঞ্জ ও কামাল কাছনা কাঁচাবাজারে এসব অভিযান পরিচালনা করেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তা আফসানা পারভীন। এ সময় অভিযানে সহায়তা করেন রংপুর মহানগর পুলিশ সদস্যরা।

অভিযানের সময়ে শাহী ভান্ডার, মন্ডল স্টোর ও বাবুল স্টোরের গোডাউনে বসুন্ধরা ও তীর কোম্পানির মজুত রাখা ৮০০০ লিটার ভোজ্যতেল জব্দ করা হয়।

এর মধ্যে বাবুল স্টোরকে সতর্ক করে দেওয়ার সঙ্গে জরিমানাসহ গোডাউনে মজুত রাখা সয়াবিন তেল বাজারে সরবরাহের ব্যবস্থা করে অভিযান পরিচালনাকারী কর্মকর্তা। পরে তিনটি দোকানকে আগের দামে বিক্রি করার জন্য নির্দেশ দেন আফসানা পারভীন।

বাজারে সয়াবিন তেলসহ অন্যান্য পণ্যের সরবরাহ ঠিক রাখা এবং অতিরিক্ত মজুত না রাখতে বিক্রেতাসহ সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বানও জানায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর।

এ ব্যাপারে অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক আফসানা পারভীন সাংবাদিকদের জানান, কয়েকটি গুদামে ৮ হাজার লিটার তেল মজুত রাখায় তাদের সতর্ক ও জরিমানা করা হয়েছে। সেই সঙ্গে বাজারে ন্যায্যমূল্যে তেল সরবরাহের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, তেলের কৃত্রিম সংকট মোকাবিলায় অসাধু ব্যবসায়ীদের কঠোর শাস্তির বিধান রেখে মাঠে প্রতিনিয়ত কাজ করছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। এ ধরনের অভিযান আগামীতেও অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন তিনি।