ব্রেকিং:
বাংলাদেশকে ২৮৫৪ কোটি টাকা ঋণ দিলো বিশ্বব্যাংক তেলের সংকট নেই, বলছেন পাম্প মালিকরা

সোমবার   ০৮ আগস্ট ২০২২   শ্রাবণ ২৩ ১৪২৯   ১০ মুহররম ১৪৪৪

সর্বশেষ:
বাংলাদেশকে ২৮৫৪ কোটি টাকা ঋণ দিলো বিশ্বব্যাংক ট্রেনের উপর প্রভাব,যাত্রীদের উপচেপড়া ভীর রংপুরে বাস সংকটে যাত্রী বেড়েছে ট্রেনে অসহনীয় কাঁচা মরিচ, খুচরায় কেজি ২৪০ তুরস্কে মূল্যস্ফীতি ২৪ বছরে সর্বোচ্চ, লিরার পতন অব্যাহত
১৯৪

আফগানিস্তানকে খাদ্য সহায়তায় এক কোটি টাকা দিচ্ছে বাংলাদেশ

প্রকাশিত: ২২ মে ২০২২  

আফগানিস্তানে চলমান তীব্র আকার ধারণ করা খাদ্য এবং অন্যান্য সংকটের প্রেক্ষাপটে দেশটিকে খাদ্য সহায়তার অংশ হিসেবে নগদ এক কোটি টাকা মানবিক সহায়তা দিচ্ছে বাংলাদেশ সরকার।

জাতিসংঘের অঙ্গ সংস্থা অফিস ফর দ্য কো-অর্ডিনেশন অব হিউম্যানিটারিয়ান অ্যাফেয়ার্স (ইউএন ওসিএইসএ) এর তহবিলের মাধ্যমে অনুদানের এ অর্থ পাঠানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে।

রোববার (২২ মে) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়ে বলা হয়েছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনুমোদন ও নির্দেশনার ভিত্তিতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ অর্থ ইউএন ওসিএইসএ-এর তহবিলে পাঠানোর জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়েছে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী মিশন, নিউইয়র্ক, বাংলাদেশ সরকারের পক্ষে ইউএন ওসিএইসএ কর্তৃক আফগানিস্তানে মানবিক সহায়তার জন্য গঠিত বিশেষ তহবিলে অনুদানের অর্থ পাঠানো হবে এবং এ সংক্রান্ত কার্যক্রম বর্তমানে প্রক্রিয়াধীন আছে।

মানবিক সহায়তার এ অর্থ জাতিসংঘের অঙ্গ সংস্থাটির মাধ্যমে আফগানিস্তানের খাদ্য সংকটে থাকা সাধারণ মানুষের জন্য ব্যয় করা হবে।

বাংলাদেশের এ অর্থ সহায়তা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক অনুসৃত আঞ্চলিক ভ্রাতৃত্ববোধ, দক্ষিণ এশিয়ার সমন্বিত উন্নয়ন এবং সবার প্রতি সহযোগিতার নীতির বাস্তব প্রতিফলন বলেও সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

এ মানবিক সহায়তার মধ্য দিয়ে বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি আরও উজ্জ্বল হবে বলেও আশা প্রকাশ করা হয়েছে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে।

গত বছরের মাঝামাঝি আফগানিস্তানে তালেবান ক্ষমতা দখলের পর দেশটিতে খাদ্যসহ নানা সংকট তীব্রতর হতে শুরু করে।

সম্প্রতি জাতিসংঘের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, দেশটিতে ৯০ শতাংশের বেশি মানুষ তীব্র খাদ্য সংকটের মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন।

তালেবান ক্ষমতা দখলের পরই গত বছরের সেপ্টেম্বরে জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি (ডব্লিউএফপি) জানিয়েছিল, দেশটিতে মাত্র ৫ শতাংশ আফগান পরিবারের কাছে প্রতিদিন খেয়ে বাঁচার মতো রসদ আছে। দেশটির প্রায় ১০ লাখ শিশু ভয়াবহ পর্যায়ের পুষ্টিহীনতার শিকার, পরের মাস অক্টোবরেই জানিয়েছিল সংস্থাটি।

এই বিভাগের আরো খবর