ব্রেকিং:
২০ ডিসেম্বর থেকে দেওয়া হবে করোনা টিকার চতুর্থ ডোজ আড়াই বছর পর চালু হলো কুড়িগ্রামের বর্ডার হাট

বুধবার   ০৭ ডিসেম্বর ২০২২   অগ্রাহায়ণ ২২ ১৪২৯   ১৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

সর্বশেষ:
কুড়িগ্রামে পুকুরে ডুবে শিশুর মৃত্যু আজ ৬ ডিসেম্বর লালমনিরহাট হানাদার মুক্ত দিবস গোলরক্ষকের বীরত্বে জাপানকে টাইব্রেকারে হারিয়ে কোয়ার্টারে ক্রোয়েশি ব্রাজিলের শেষ আটে ওঠার লড়াইয়ে আজ সামনে দক্ষিণ কোরিয়া কেউ আমার লাশ পাইলে ফোন দিয়েন
১১৪

নীলফামারীতে মায়ের প্রক্সি পরীক্ষায় মেয়ে হাজতে

(জামান মৃধা, নীলফামারী প্রতিনিধি):

প্রকাশিত: ১৮ নভেম্বর ২০২২  

নীলফামারীতে পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের নিয়োগ পরীক্ষায় নানা অনিয়মের দায়ে পাঁচ পরীক্ষার্থীকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এর মধ্যে একটি কেন্দ্রে মায়ের পরিবর্তে মেয়ে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন। পরে সাক্ষরে মিল না পাওয়ায় মা-মেয়ের তিন দিনের কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

 

 শুক্রবার (১৮ই নভেম্বর) নীলফামারী সরকারি কলেজ কেন্দ্রে ৩ জন এবং রাবেয়া বালিকা বিদ্যানিকেতন কেন্দ্রে দুজনকে এ সাজা প্রদান করেন পরীক্ষা কেন্দ্রের দায়িত্বরত দুই নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

 

কেন্দ্র সূত্রে জানা গেছে, মোবাইল ফোনে প্রশ্নপত্রের ছবি তুলে বাইরে পাঠানো ও স্বাক্ষর মিল না হওয়ার অপরাধ রয়েছে সাজাপ্রাপ্তদের বিরুদ্ধে। পরে দণ্ডিতদের জেলা কারাগারে পাঠিয়েছে নীলফামারী সদর থানা পুলিশ।

 

সাজাপ্রাপ্তরা হলেন নীলফামারী  জলঢাকা উপজেলার শৌলমারী এলাকার রবিন মোস্তাফিজের মেয়ে আফিফা আফরোজ, একই ইউনিয়নের ওসমান গনির মেয়ে রনজিনা আকতার ও উপজেলার মীরগঞ্জ ইউনিয়নের আজিজুল খানের মেয়ে আদুরী খানম। এ ছাড়া নীলফামারী সদর উপজেলার চাপড়া সরমজানী ইউনিয়নের যাদুরহাট এলাকার হাবিবুর রহমানের স্ত্রী রাশেদা বেগম ও তাঁর মেয়ে সিমলা আক্তার। রাশেদা ও সিমলা সম্পর্কে মা-মেয়ে বলে জানা গেছে।

 

জেলা পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, নীলফামারী সরকারি কলেজ কেন্দ্রে নীলফামারী সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জেসমিন নাহার ও রাবেয়া বালিকা বিদ্যা নিকেতন কেন্দ্রে নীলফামারী সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইবনুল আবেদীন দায়িত্ব পালন করেন।

 

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জেসমিন নাহার বলেন, ‘সরকারি কলেজ কেন্দ্রে জলঢাকার তিন পরীক্ষার্থী মোবাইল ফোনে প্রশ্নপত্রের ছবি তুলে বাইরে পাঠানোর অপরাধে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে আফিফা আফরোজের ২ দিন এবং বাকি দুজনের ৩ দিন করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। দন্ডিতদের দুপুরে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।’

 

অন্যদিকে, সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইবনুল আবেদীন বলেন, রাবেয়া বালিকা বিদ্যা নিকেতনে রাশেদা বেগম নামের এক পরীক্ষার্থীর জায়গায় পরীক্ষায় বসেছিলেন তাঁর মেয়ে সিমলা আক্তার। পরীক্ষার্থী রাশেদার স্বাক্ষর মিল না হওয়ায় মেয়ে সিমলা ও মা রাশেদাকে ৩ দিন করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। 

এই বিভাগের আরো খবর