ব্রেকিং:
বাংলাদেশকে ২৮৫৪ কোটি টাকা ঋণ দিলো বিশ্বব্যাংক তেলের সংকট নেই, বলছেন পাম্প মালিকরা

সোমবার   ০৮ আগস্ট ২০২২   শ্রাবণ ২৩ ১৪২৯   ১০ মুহররম ১৪৪৪

সর্বশেষ:
বাংলাদেশকে ২৮৫৪ কোটি টাকা ঋণ দিলো বিশ্বব্যাংক ট্রেনের উপর প্রভাব,যাত্রীদের উপচেপড়া ভীর রংপুরে বাস সংকটে যাত্রী বেড়েছে ট্রেনে অসহনীয় কাঁচা মরিচ, খুচরায় কেজি ২৪০ তুরস্কে মূল্যস্ফীতি ২৪ বছরে সর্বোচ্চ, লিরার পতন অব্যাহত
৩৮৫

ডিমলায় প্রতিবন্ধী বন্ধুর স্ত্রীকে ধর্ষণ

(জামান মৃধা নীলফামারী প্রতিনিধি):

প্রকাশিত: ৩১ জুলাই ২০২২  

বন্ধুত্বের সর্ম্পক ধরে বন্ধুকে স্প্রিট (কোমল পানি) পান করিয়ে ঘুম পাড়িয়ে বন্ধুর স্ত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

 

ঘটনাটি ঘটেছে নীলফামারী ডিমলা উপজেলা খালিশা চাপানি ইউনিয়নের বাইশ পুকুর মধ্যচর গ্রামে। মোকবার রহমানের শারীরিক প্রতিবন্ধী ছেলে মোজাফফর হোসেনের বাড়ীতে।

 

মোজাফফর হোসেন বলেন,  ডালিয়া আদর্শ পাড়া গ্রামের মৃত বাবুল হোসেনের ছেলে সাইদুল ইসলাম  হোটেল ব্যবসায়ী বন্ধুত্বের সম্পর্ক ধরে গত ২৯/৭/২২ইং তারিখ আমার বাড়ীতে আসে ও দাওয়াত খেয়ে চলে যায়। এর পরের দিনও ৩০/৭/২২ইং তারিখ পূণরায় দিনের বেলায় আমার বাড়িতে আসে এবং আমাকে সঙ্গে নিয় ডালিয়া তার হোটেলে নিয়ে যায় এবং সেখানে সে একটি স্প্রিট খায় আমাকেও একটি স্প্রিট দেয়।

আমি তা খাওয়ার শেষে  দু’জনে বাড়ী ফিরে আসি আমাদের সঙ্গে ছিলো আমার প্রতিবেশি মৃত বছির উদ্দিনের ছেলে বাবুল হোসেন। বাবুল আমাকে ঔষুধ খাইয়ে দেয়। এর পর ঘুম আসে এর পর কি হলো আর বলতে পারিনা। 

 

মোজাফফরের স্ত্রী জানান, আমাদের শয়ন কক্ষে দুটি খাট ছিলো পশ্চিম খাটে আমি ঘুমিয়ে ছিলাম। রাত অনুমানিক সাড়ে ১০ টার সময় দেখি বন্ধু সাইদুল ইসলাম আমাকে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। তার সঙ্গে থাকা বাবুল হোসেন আমার স্পর্শ কাতর স্থানে হাত দিচ্ছিল। এমতাবস্থায় আমি চিৎকার চেচামেচি করি সেই সময় আমার শ্বশুর ও এলাকাবাসীর সহযোগিতায় ধর্ষক সাইদুল ইসলামকে মোটর সাইকেলসহ আটক করি। আমার চিৎকার-চেঁচামেচিতে ইউপি সদস্য রবিউল ইসলাম শিমুলসহ গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত হয়। তারা আমার বাড়ির আঙ্গিনায় বসা মাত্র ধর্ষক সাইদুল ইসলাম কে তার সহযোগী বাবুলের সহায়তায় তাকে বের করে নিয়ে পালিয়ে যায়।

 

এদিকে ৩১শে জুলাই সকালে হট লাইন ৯৯৯''য়ে ফোন দিলে ঘটনা স্থালে ডিমলা থানা পুলিশের সাব-ইন্সপেক্টর আকতার হোসেন উপস্থিত হন এবং আটকৃত মোটরবাইক ও অভিযোগকারীকে নিয়ে থানায় আসেন। ধর্ষনের আলামত সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে তদন্তকারী ইন্সপেক্টর বলেন, মেডিকেল রিপোর্ট আসলেই নিশ্চিত হওয়া যাবে।

এই বিভাগের আরো খবর