ব্রেকিং:
বাংলাদেশকে ২৮৫৪ কোটি টাকা ঋণ দিলো বিশ্বব্যাংক তেলের সংকট নেই, বলছেন পাম্প মালিকরা

সোমবার   ০৮ আগস্ট ২০২২   শ্রাবণ ২৩ ১৪২৯   ১০ মুহররম ১৪৪৪

সর্বশেষ:
বাংলাদেশকে ২৮৫৪ কোটি টাকা ঋণ দিলো বিশ্বব্যাংক ট্রেনের উপর প্রভাব,যাত্রীদের উপচেপড়া ভীর রংপুরে বাস সংকটে যাত্রী বেড়েছে ট্রেনে অসহনীয় কাঁচা মরিচ, খুচরায় কেজি ২৪০ তুরস্কে মূল্যস্ফীতি ২৪ বছরে সর্বোচ্চ, লিরার পতন অব্যাহত
১২৩

ডিমলায় তথ্য চাওয়ায় সাংবাদিককে তুই-তুকারী প্রধান শিক্ষকের

(জামান মৃধা নীলফামারী প্রতিনিধি):

প্রকাশিত: ৫ আগস্ট ২০২২  

তথ্যনির্ভর সংবাদের জন্য মুঠোফোনে তথ্য চাওয়ায় সাংবাদিকদের সাথে তুই তুকারী ভাষায় গালিগালাজ করেছেন নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার বালাপাড়া নিউ মডেল বালিকা উচ্চ  বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম। ওই শিক্ষক উপজেলার সাংবাদিকের ব্যক্তিগত বিষয় তুলেও গালাগালি করেন।

 

বুধবার (৩রা আগস্ট) দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার (৪ঠা আগস্ট) বিকেলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ভুক্তভোগী সাংবাদিকগণ। 

 

জানা গেছে, গত ১৯শে জুলাই উপজেলা উন্নয়ন সহায়তা খাতের আওতায় বালাপাড়া নিউ মডেল বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে (বিআরবি) কোম্পানির ৮টি বৈদ্যুতিক পাখা দেন উপজেলা প্রশাসন। এসব বৈদ্যুতিক পাখা বিদ্যালয়ের শ্রেণী কক্ষে ব্যবহারের নির্দেশনা থাকলেও তা মানা হয়নি। স্থানীয় ও অভিভাবকদের এমন অভিযোগের ভিত্তিতে সংবাদ পরিবেশনের জন্য এই তথ্য চাওয়া হলে প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম এই দুরব্যবহার করেন। এ ঘটনায় ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন জেলা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম ।

 

সরেজমিনে দেখা যায়, বিদ্যালয়ের বিভিন্ন শ্রেণীকক্ষে এপি ব্রান্ডের পুরাতন বৈদ্যুতিক পাখা লাগানো রয়েছে। শুধুমাত্র দশম শ্রেণীর কক্ষে একটি নতুন বৈদ্যুতিক পাখা রয়েছে। বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক 

মোস্তাহেদুল ইসলাম, রোকনুজ্জামান (রোকন) ও  অফিস সহকারী-মজিদুল ইসলাম জানান, প্রধান শিক্ষক গত সপ্তাহে দশম শ্রেণীর কক্ষে (বিআরবি) কোম্পানির ১টি নতুন বৈদ্যুতিক পাখা লাগিয়েছিলেন, আর স্টোর রুমে দুটি বৈদ্যুতিক পাখা প্যাকেটজাত অবস্থায় রয়েছে।

 

বাকী বৈদ্যুতিক পাখার বিষয় আমরা কিছু জানি না। নবম ও দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থীরা জানান, গত দুই  সপ্তাহের মধ্যে তাদের শ্রেণী কক্ষে নতুন কোনো বৈদ্যুতিক পাখা লাগানো হয়নি। পুরাতন বৈদ্যুতিক পাখার বাতাসে চলছে তাদের পাঠদান কার্যক্রম।

 

প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলামকে স্কুলে না পেয়ে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি ওই সাংবাদিককে তুই তুকারী বলতে শুরু করেন, তোকে তুই না বলে কি আপনি বলবো ? 

তুই কেন আমার স্কুলে গেছিস বলে অসৌজন্যমূলক অশালীন আচরন করেন। এ সময় তিনি বৈদ্যুতিক পাখার বিষয়ে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলায় বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের নিয়েও অশালীন মন্তব্য করেন।

 

প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক মাসুদ পারভেজ (রুবেল) বলেন, বৈদ্যুতিক পাখার বিষয়ে প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলামের কাছে তথ্য চাইলে তিনি মুঠোফোনে আমাদেরকে অকথ্য ভাষায় গালাগালি করেন।

 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বেলায়েত হোসেন জানান, এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ ও একটি কল রেকডিং পেয়েছি। তদন্ত করে এই ঘটনার ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দেন তিনি

এই বিভাগের আরো খবর