ব্রেকিং:
বাংলাদেশকে ২৮৫৪ কোটি টাকা ঋণ দিলো বিশ্বব্যাংক তেলের সংকট নেই, বলছেন পাম্প মালিকরা

সোমবার   ০৮ আগস্ট ২০২২   শ্রাবণ ২৩ ১৪২৯   ১০ মুহররম ১৪৪৪

সর্বশেষ:
বাংলাদেশকে ২৮৫৪ কোটি টাকা ঋণ দিলো বিশ্বব্যাংক ট্রেনের উপর প্রভাব,যাত্রীদের উপচেপড়া ভীর রংপুরে বাস সংকটে যাত্রী বেড়েছে ট্রেনে অসহনীয় কাঁচা মরিচ, খুচরায় কেজি ২৪০ তুরস্কে মূল্যস্ফীতি ২৪ বছরে সর্বোচ্চ, লিরার পতন অব্যাহত
১৭৩

ঈদে বুড়িমারী স্থলবন্দরে সাতদিন আমদানি-রপ্তানি বন্ধ

প্রকাশিত: ৬ জুলাই ২০২২  

লালমনিরহাটের বুড়িমারী স্থল শুল্ক স্টেশন ও স্থলবন্দরে ঈদুল আজহা ও সাপ্তাহিক ছুটি মিলিয়ে সাতদিন আমদানি-রপ্তানি বন্ধ থাকবে।

মঙ্গলবার (৫ জুলাই) দুপুরে বুড়িমারী কাস্টমস ক্লিয়ারিং অ্যান্ড ফরওয়ার্ডিং এজেন্ট (সিঅ্যান্ডএফ) অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ছায়েদুজ্জামান ছায়েদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।


তিনি বলেন, ঈদ উপলক্ষে আগামী ৯ জুলাই (শনিবার) থেকে ১৪ জুলাই (বৃহস্পতিবার) পর্যন্ত ছয়দিন ও ১৫ জুলাই (শুক্রবার) সাপ্তাহিক ছুটিসহ সাতদিন আমদানি-রপ্তানিসহ সব ব্যবসায়িক কার্যক্রম বন্ধ রাখার বিষয়ে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আগামী ১৬ জুলাই (শনিবার) থেকে যথানিয়মে আবারও আমদানি-রপ্তানিসহ সব ব্যবসায়িক কার্যক্রম চালু হবে।

 

ছায়েদুজ্জামান ছায়েদ আরও বলেন, এ সংক্রান্ত একটি চিঠি বুড়িমারী স্থল শুল্ক স্টেশন (কাস্টমস কর্তৃপক্ষ), বন্দর কর্তৃপক্ষ, বুড়িমারী স্থলবন্দর আমদানি-রপ্তানিকারক অ্যাসোসিয়েশন, বুড়িমারী বিজিবি কমান্ডার, পুলিশ ইমিগ্রেশন, লালমনিরহাট চেম্বার অব কর্মাস, সোনালী ব্যাংক, ভারতীয় চ্যাংরাবান্ধা স্থল শুল্ক স্টেশন কাস্টমস, বিএসএফ কমান্ডার, চ্যাংরাবান্ধা আমদানি- রপ্তানিকারক অ্যাসোসিয়েশন, সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশন, ট্রাক ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন, এক্সপোর্টার অ্যাসোসিয়েশন ও ভুটান এক্সপোর্টার অ্যাসোসিয়েশনকে দেওয়া হয়েছে।

তবে এসময়ে বন্দর দিয়ে পাসপোর্টধারী যাত্রীদের চলাচল স্বাভাবিক থাকবে বলে জানিয়েছেন বুড়িমারী স্থলবন্দর ইমিগ্রেশন পুলিশের কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক (এসআই) আনোয়ার হোসেন।

 

তিনি বলেন, বুড়িমারী স্থল শুল্ক স্টেশন ও স্থলবন্দরের আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম বন্ধ থাকলেও বুড়িমারী অভিবাসন চৌকি হয়ে পাসপোর্ট ও ভিসাধারী যাত্রীদের যাতায়াত স্বাভাবিক ও চালু থাকবে।

এ বিষয়ে বুড়িমারী স্থল শুল্ক স্টেশন কাস্টমস সহকারী কমিশনার (এসি) জে এম আলী আহসান বলেন, সিঅ্যান্ডএফ ও আমদানি-রপ্তানিকারক এবং ব্যবসায়ী ও পরিবহনে নিযুক্ত ব্যক্তিরা কাজ বন্ধ রাখলে এমনিতেই স্থল শুল্ক স্টেশন ও বন্দরের কাজ থাকে না। তবে সরকারি নিয়ম অনুযায়ী আমাদের কাস্টমস কার্যালয় খোলা থাকবে।