মঙ্গলবার   ২৮ জুন ২০২২   আষাঢ় ১৩ ১৪২৯   ২৮ জ্বিলকদ ১৪৪৩

সর্বশেষ:
চাকরির একমাত্র বিকল্প শিক্ষিত বেকারদের উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে তোলা সোমবার থেকে পদ্মা সেতুতে মোটরসাইকেল চলাচল নিষিদ্ধ ৯০ মিনিটের নদীপথ পার ৬ মিনিটে বাংলাদেশ আজ মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে : প্রধানমন্ত্রী দ্বার খুলল স্বপ্নের পদ্মা সেতুর পদ্মা সেতু উদ্বোধন: মানুষের ঢল
৯৭

 দুর্বল ‘অশনি’, নিঃশেষ হতে পারে সাগরেই

প্রকাশিত: ১১ মে ২০২২  

ভারতের অন্ধ্র প্রদেশ উপকূল ছুঁয়ে দুর্বল হয়ে গেছে প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘অশনি’। অন্ধ্র উপকূলে ওঠার পর এটি উত্তর-পশ্চিম ও উত্তর দিকে এগোবে, এরপর উত্তর-পূর্ব দিকে এগিয়ে আবার সমুদ্রে গিয়ে ধীরে ধীরে নিঃশেষ হয়ে যেতে পারে।

বুধবার (১১ মে) বাংলাদেশ ও ভারতের আবহাওয়া বিভাগ থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

সকালে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘অশনি’ উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর ও দুর্বল হয়ে ঘূর্ণিঝড় আকারে ভারতের অন্ধ্র উপকূল ও তৎসংলগ্ন পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থান করছে। এটি বুধবার ভোর ৬টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে এক হাজার ৩৩৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে এক হাজার ৩১০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে এক হাজার ১৫০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে এক হাজার ১৮০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছিল। এটি আরও উত্তর-পশ্চিম ও উত্তর দিকে অগ্রসর ও দুর্বল হয়ে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে গভীর নিম্নচাপে পরিণত হতে পারে।

এতে আরও বলা হয়, ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৫৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২ কিলোমিটার যা দমকা বা ঝোড়ো হাওয়ার আকারে ৮৮ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের নিকটবর্তী এলাকায় সাগর খুবই বিক্ষুব্ধ রয়েছে।

চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরসমূহকে ২ নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সকল মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে। সেইসঙ্গে তাদের গভীর সাগরে বিচরণ না করতে বলা হয়েছে বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে।

বুধবার সকালে ভারতের আবহাওয়া বিভাগ সর্বশেষ বুলেটিন জানিয়েছে, অশনি উত্তর ও উত্তর-পূর্ব দিকে নরসপুর, ইয়ানাম, কাকিনাদা, তুনি ও বিশাখাপত্তনম উপকূল ধরে এগিয়ে পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগরে গিয়ে পড়বে।

মার্কিন নৌবাহিনী পরিচালিত জয়েন্ট তাইফুন ওয়ার্নিং সেন্টার সর্বশেষ ‘অশনি’র যে গতিপথ দেখিয়েছে, সেই অনুযায়ী এটি চেন্নাই এবং বিশাখাপত্তনমের মাঝামাঝি স্থলভাগে উঠবে। এরপর বিশাখাপত্তনমের কাছ দিয়ে আবার সমুদ্রে নামবে। এরপর মূলত এটি ধীরে ধীরে দুর্বল হয়ে সমুদ্রের মধ্যেই নিঃশেষ হয়ে যাবে।

‘অশনি’র অগ্রবর্তী অংশের প্রভাবে ৯ তারিখ থেকে ঢাকাসহ প্রায় সারাদেশে বৃষ্টি হয়েছে। উপকূলীয় খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগে অতিভারি বৃষ্টি হচ্ছে। মঙ্গলবার প্রায় সারাদিন বৃষ্টি থাকলেও বুধবার সকাল থেকেই ঢাকার আকাশে মেঘের আনাগোনা রয়েছে। বৃষ্টি নেই, মাঝে মাঝে মেঘের ফাঁকে উঁকি মারছে রোদ।

এই বিভাগের আরো খবর